রাজনীতি

ধর্ষণের প্রতিবাদে সারাদেশে ছাত্রশিবিরের বিক্ষোভ

2020/10/05/_post_thumb-2020_10_05_21_36_59.jpg

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে যুবলীগ কতৃক ধর্ষণ চেষ্টা এবং সারাদেশে ধর্ষণ ও নির্যাতন বৃদ্ধির প্রতিবাদে রাজধানীসহ সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

বিক্ষোভ শেষে শিবির নেতারা বলেন, ক্ষমতাসীন সরকারের অধিনে থেকে ছাত্রলীগ, যুবলীগ আজ ধর্ষণ লীগে পরিনত হয়েছে। ভোট চুরির মাধ্যমে দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থেকে তারা আজ বেপরওয়া হয়ে নিজেদের নাম পরিচয় হারিয়েছে।


এ সময় তারা গত ২ অক্টোবর নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে যুবলীগ কতৃক একজন নরীকে পাশবিক নির্যাতন ও বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করার রোমহর্ষক ঘটনার তিব্র নিন্দা জানান।

নেতৃবৃন্দরা বলেন, শুধু নোয়াখলী নয় সারাদেশে ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের হাত থেকে রেহায় পাচ্ছেনা নারীরা। এ সময় সিলেট এমসি কলেজের ঘটনায় ধর্ষক ছাত্রলীগ নেতা ও সারাদেশে যেসব ধর্ষণ হচ্ছে তার দ্রুত বিচার কার্যকর করার আহ্বান জানান তারা। 

নেতারা বলেন, ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনার সাথে ক্ষমতাসীন দলের বিশেষ করে ছাত্রলীগ জড়িত। সরকারি দলের আশ্রয়ে-প্রশ্রয়ে এবং গডফাদারদের প্রত্যক্ষ পৃষ্ঠপোষকতায় বেশির ভাগ ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। সিলেটের ধর্ষণের ঘটনার পর নোয়াখালীর নারী নির্যাতনের ঘটনা প্রমাণ করে বর্তমান সরকারের নিকট নারীর সম্মান ও ইজ্জতের কোনোই মূল্য ও নিরাপত্তা নেই।


এছাড়া সারাদেশে ধর্ষণের প্রতিবাদে মিছিল করেছে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। সে সব মিছিল থেকে ছাত্রলীগ নিষিদ্ধের দাবি তোলা হয়।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এক পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে যে, গত ৯ মাসে সারা দেশে ধর্ষিতা হয়েছেন ৯৭৫ জন নারী ও শিশু। এর মধ্যে ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হয়েছেন ৪৩ জন নারী আর আত্মহত্যা করেছেন ১২ জন হতভাগ্য নারী। বর্তমান সরকারের আমলে গত ৫ বছরে (২০১৪-২০১৯) নির্যাতিতা হয়েছেন ৫ হাজার ২৭৪ জন নারী ও শিশু এবং ধর্ষিতা হয়েছেন ৩ হাজার ৯৮০ জন, গণ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৯৪৫ জন। ধর্ষণের কারণে নিহত হয়েছেন ৩৪৯ জন।

মন্তব্য