রাজনীতি

গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে এমসি কলেজ ছাত্রশিবিরের বিক্ষোভ মিছিল

2020/09/26/_post_thumb-2020_09_26_23_11_53.jpg

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে জিম্মি করে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এমসি কলেজ ছাত্রশিবির।

গতকাল (২৬ সেপ্টেম্বর, শনিবার) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে নগরীর শিবগঞ্জ এলাকায় বিক্ষোভ মিছিলটি অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে এমসি কলেজ ছাত্রশিবির সভাপতি ইমদাদুল হক বলেন, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পূণ্যভূমি সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে জিম্মি করে স্ত্রীকে গণধর্ষণের মতো ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে। এধরণের নৃশংস ও লোমহর্ষক ঘটনায়দেশবাসী আতঙ্কিত করে।

সমাবেশে তিনি বলেন, সরকারের প্রশ্রয়ে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা ধর্ষণের মত ঘৃণ্য কাজ নির্বিঘনে করে যাচ্ছে। দেশের স্কুল, কলেজ আজ ছাত্রলীগের হাতে নিরাপদ নয়। এসময় তিনি গৃহবধু গণধর্ষণে জড়িতদের অবিলম্বের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানান।

বিক্ষোভ মিছিলে এমসি কলেজ ছাত্রশিবির সেক্রেটারি শাহিন আহমদসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

এদিকে গণধর্ষণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছে সিলেট মহানগর ছাত্রশিবির।

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ও সিলেট মহানগরী সভাপতি মামুন হোসাইন ও সেক্রেটারি সাইফুল ইসলাম এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, শুক্রবার বিকালে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ এমসি কলেজ প্রাঙ্গণ থেকে এক যুবক- যুবতী দম্পতিকে প্রকাশ্যে ছাত্রাবাসে তুলে নিয়ে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা গণধর্ষণ করেছে। এধরণের নৃশংস ও লোমহর্ষক ঘটনায় দেশবাসী আজ আতঙ্কিত। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, রাস্তাঘাটসহ কোনো জনপদই আজ ছাত্রলীগের হাতে নিরাপদ নয়।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও পাশ কাটানো ভূমিকায় মনে হয় তারা ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের কাছে মা-বোনদের সম্ভ্রমহানির লাইসেন্স দিয়েছে। কিন্তু এদেশের ছাত্রজনতা তা মেনে নিবে

না। সরকার যদি বিচারহীনতার ধারা অব্যাহত রাখে তাহলে ছাত্রসমাজ কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে। এসব কুলাঙ্গার, কাপুরুষ, অমানুষদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার সময়ের অপরিহার্য দাবি।

গণধর্ষণে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও সরকারের প্রশ্রয়ে সরকারদলীয় সন্ত্রাসীরা ধর্ষণের মত ঘৃণ্য কাজ নির্বিঘনে করে যাচ্ছে। এসব অপকর্মের বিচারের বিষয়েও সরকার নির্বিকার। যার কারণে নরপিশাচদের লোমহর্ষক অপকর্ম বেড়েই চলেছে। শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকরা গভীর শঙ্কায় দিনযাপন করছে। আমরা চাই আর একজন নারীও যেন ধর্ষণ, নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার না হন। এসময় তারা সারাদেশে এধরণের ঘটনায় ইতোপূর্বে গ্রেফতারকৃত ও চিহ্নিতদের খুঁজে বের করে কঠিন বিচারের মুখোমুখি করার জোর দাবি জানান।

মন্তব্য